প্রচ্ছদ অপরাধ চাঁদা না দেওয়াই সন্ত্রসীদের হাতে জীবন দিলো রকিবুল

চাঁদা না দেওয়াই সন্ত্রসীদের হাতে জীবন দিলো রকিবুল

48
0

বগুড়া প্রতিনিধিঃ চাঁদা না দেওয়াই কুরআনে হাফেজ মোঃ রকিবুল হাসান হৃদয়কে সন্ত্রসীদের হাতে জীবন দিতে হলো। সংবাদ সম্মেলনে মা আয়েশা সিদ্দিকার অভিযোগ মুখোশধারি গডফাদারদের মদদে চলে চাঁদাবাজি ও খুনের মত নৃশংস ঘটনা বগুড়া সদরের কৈপাড়া গ্রামে সন্ত্রাসিদের হাতে নিহত ব্যবসায়ি হাফেজ মোঃ রকিবুল হাসান হৃদয় (২৮)- এর প্রকৃত ঘটনা জানাতে তার মা মোছাঃ আয়েশা সিদ্দিকা আজ সোমবার দুপুরে বগুড়া প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন।

তিনি জানান, কৈপাড়া গ্রামে তাদের তিন তলা ভবনের নিচ তলায় তার ছেলে হাফেজ মোঃ রকিবুল হাসান হৃদয়ের মুদিখানার দোকান রয়েছে। সেই দোকানে ঈদুল আযহার আগের দিন সন্ধ্যায় এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসিরা চাঁদা দাবী করে। আমার ছেলে চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাকে তারা ছুরিকাঘাত করে।

ছেলের চিৎকারে আমি ও আমার স্বামী মোঃ মামুনুর রশিদ এগিয়ে আসি এবং ছেলেকে রক্ষার চেষ্টা করি। কিন্তু সন্ত্রাসিরা আমার স্বামিকেও ছুরিকাঘাতে আহত করে পালিয়ে যায়। পরে আমি তাদেরকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করি। সেখানে ঈদের দিন আমার প্রান প্রিয় ছেলে হাফেজ মোঃ রকিবুল হাসান হৃদয় মারা যান। এদিকে ওই দিন রাত ১০ টায় আমার ওই ছেলের অন্তসত্তা স্ত্রী একটি পুত্র সন্তান জন্ম দেয়। যা দেখার ভাগ্য আমার কুরআনে হাফেজ মোঃ রকিবুল হাসান হৃদয়ের দেখার ভাগ্য হলোনা।

মোছাঃ আয়েশা সিদ্দিকা সংবাদ সম্মেলনে ঘটনার বর্ণনা দিয়ে দূঃখ প্রকাশ করে বলেন, প্রকৃত এই ঘটনাকে আড়াল করে কিছু কিছু সংবাদ পত্রে বানোয়াট ও মিথ্যা খবর প্রচার করা হয়েছে। তিনি সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন, তাদের কৈপাড়া গ্রামে এসব চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসি ও খুনের ঘটনা নতুন নয়। এ সবের পিছনে রয়েছে মুখোশধারী গডফাদারদের মদদ। প্রশাসনের জরালো পদক্ষেপ না থাকায় এমন নির্মম নৃশংস ঘটনা ঘটছে। তিনি প্রধান মন্ত্রীর কাছে তার ছেলের হত্যাকারীদের শাস্তির দাবী করেছেন।

নূরজাহান আওরঙ্গজেব রাখি/মাহা