প্রচ্ছদ দেশজুড়ে বরিশাল বিভাগ বরগুনা সদর উপজেলাধীন জেলেদের মাঝে চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে

বরগুনা সদর উপজেলাধীন জেলেদের মাঝে চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে

76
0

বরগুনা সদর উপজেলাধীন এম. বালিয়াতলী ইউনিয়নে জেলেদের মাঝে চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। প্রকৃত জেলেরা পাননি ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত একটানা ৬৫ দিনের অবরোধে ঘরে বসা গভীর সমুদ্রগামী ৬৮১ জন জেলেদের মাঝে মৎস্য অধিদপ্তর থেকে দেয়া জন প্রতি ৫৬ কেজি চাল। সদর উপজেলায় ৭ হাজার ৭ শ’ ৭৮ জন জেলেদের মধ্যে বাছাই করা বিভিন্ন ইউনিয়নের ৩ হাজার ৮ শ’ ৫০ জন জেলেদের মাঝে এ চাল বিতরণ করা হয়। যার মধ্যে ৯ নং এম. বালিয়াতলী ইউনিয়নের প্রকৃত জেলেরা এ চাল পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়েছে বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ।

সরেজমিনে গিয়ে যার প্রমান মিলেছে। একাধিক ব্যক্তি ভিডিও সাক্ষাতকারে এমন অভিযোগ তুলে ধরে বলেন আমরা প্রকৃত জেলে হয়েও মৎস্য অধিদপ্তর থেকে চাল বিতরণ করা হলেও আমরা তা পাইনি। বরং কিছু টাকার বিনিময়ে একসময়ের জেলেরা পাচ্ছে এই চাল। করোনার ভয়াবহ রুপ দেখে সরকার একটানা ৭ দিন কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা সত্তেও এর কোন তোয়াক্কা না করেই জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ করা হয়েছে। ছিলোনা কোন ধরণের স্বাস্থ্যবিধির চিটেফোটা। জেলে পরিবারের নারী ও শিশুরাও চাল নিতে পরিষদে আসেন।

বিষয়টি জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনকে জানালে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বললেও কোন ধরণের সরব মেলেনি। একদিকে জেলেদের অভিযোগ অবরোধে ঘরে বেকার বসে থাকা প্রকৃত মৎস্যজীবীরা পাননি মৎস্য অধিদপ্তর থেকে দেয়া চাল। অন্যদিকে এলাকাবাসী বলছেন করোনাকালীন সময়ে যেভাবে চাল বিতরণ করা হয়েছে তাতে করোনা ঝুঁকিতে রয়েছেন। প্রকৃত জেলেরা পাননি চাল, এমন অভিযোগের বিষয়ে ৯ নং এম. বালিয়াতলী ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মোঃ শাহ নেওয়াজ সেলিম বলেন। এ ব্যপারে বরগুনা সদর উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তরের সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো: শহীদুল ইসলাম জানান।

রাসেল হাওলাদার, বরগুনা